দামি ব্রান্ডের মেকআপ ব্যবহার করা হচ্ছে, ত্বকও সব সময় পরিষ্কার রাখছেন। এরপরও মেকআপ করলেই ত্বকের বিভিন্ন রকমের সমস্যা লক্ষ্য করছেন। বুঝতেই পারছেন না এমনটা কেন হচ্ছে। এর জন্য আপনার মেকআপ সরঞ্জাম দায়ী নয় তো? ব্রাশ, স্পঞ্জ বা অন্য মেকআপের সরঞ্জামে ময়লা জমে ব্যক্টেরিয়া বাসা বাঁধে। আর তাতেই দেখা দেয় ত্বকের সমস্যা। এর থেকে পরিত্রাণ পেতে পরিষ্কার রাখুন মেকআপ এর সরঞ্জামগুলো। সেই সাথে চুলের যত্নে ব্যবহৃত জিনিসগুলোও পরিষ্কার রাখা জরুরি। তাহলে জেনে নিন কোনটি কীভাবে পরিষ্কার করবেন।

মেকআপ ব্রাশ: মেকআপ ব্রাশে সবচেয়ে বেশি ব্যাক্টেরিয়া জমে। সেখান থেকেই মুখে নানা রকম সমস্যা তৈরি হয়। তাই ঘন ঘন পরিষ্কার করা প্রয়োজন। ফাউন্ডেশন ব্রাশ প্রত্যেকবার ব্যবহার করার পর ধুয়ে ফেলুন। এছাড়া চোখও অনেক স্পর্শকাতর। তাই লাইনার ব্রাশও ধুতে হবে নিয়মিত। গ্লিটার মেকআপ ব্যবহার করলে ব্রাশ বা ব্লেন্ডার সাবান পানিতে ভিজিয়ে রাখুন।

বাজারে ব্রাশ পরিষ্কার করার স্প্রে পাওয়া যায়। সেগুলো দিয়ে পরিষ্কার করতে পারেন। তবে খুব সাবধানে পরিষ্কার না করলে ব্রাশের ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

চিরুনি, হেয়ারব্রাশ: প্রথমেই এগুলোতে জমে থাকা চুল সরিয়ে ফেলুন। তারপর একটা পাত্রে হালকা গরম পানিতে কয়েক ফোঁটা ডিটারজেন্ট বা শ্যাম্পু মিশিয়ে চিরুনিগুলো ডুবিয়ে রাখুন। আধ ঘণ্টা পর একটি ব্রাশের সাহায্যে ঘষে পরিষ্কার করে নিন। এভাবেই নিয়মিত পরিষ্কার করুন।

ব্লো ড্রায়ার: চুল শুকানোর যন্ত্রও পরিষ্কার করতে হয়, তা অনেকেই জানেন না। কিন্তু নোংরা জমে জমে যন্ত্রটির মুখ বন্ধ হয়ে আসে। তাতে যন্ত্রটি খুব তাড়াতাড়ি বেশি মাত্রায় গরম হয়ে যায়। তাই প্রথমে একটা সরু কাঠির ডগায় তুলা দিয়ে গ্রিডের মধ্যে থেকে নোংরা বের করে নিন। তারপর ভেজা কাপড় দিয়ে মুছে নিন।

হেয়ার কার্লার বা স্ট্রেটনার: চুল কোঁকড়া বা সোজার করার সময় অনেকেই চুলে ‘হিট প্রটেকটিং সিরাম’ ব্যবহার করেন। এর ফলে নোংরা হয়ে যায় যন্ত্রগুলো। এর জন্য সেগুলো ভাল করে কোনও অ্যালকোহল ওয়াইপ দিয়ে মুছে নিন।

Translate »