পূর্ব বায়তুল মুকাদ্দাস (পূর্ব জেরুজালেম) ও আল-আকসা মসজিদ চত্বর থেকে ইহুদিবাদী সেনা প্রত্যাহারে বেধে দেয়া সময়সীমা পেরিয়ে যাওয়ার পর ইসরাইলের বিভিন্ন লক্ষ্যবস্তুতে অসংখ্য রকেট নিক্ষেপ করেছে ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস।

হামাসের সামরিক শাখা ইজ্জাদ্দিন কাসসাম ব্রিগেড সোমবার রাতে এক বিবৃতিতে জানায়, তারা বায়তুল মুকাদ্দাস শহরের ইসরাইল অধিকৃত অংশে বেশ কয়েকটি রকেট নিক্ষেপ করেছে। এই পবিত্র শহরে ইসরাইলি আগ্রাসন এবং শেখ জাররাহ ও আল-আকসা মসজিদে ফিলিস্তিনি জনগণের ওপর নিপীড়নের প্রতিবাদে এসব হামলা চালানো হয় বলে বিবৃতিতে জানানো হয়েছে।

কাসসাম ব্রিগেডের বিবৃতিতে বলা হয়, এর মাধ্যমে ইসরাইলকে এমন বার্তা দেয়া হয়েছে যা তাদের বুঝতে অসুবিধা হবে না।

এর আগে হামাস সোমবার পূর্ব বায়তুল মুকাদ্দাস থেকে সেনা প্রত্যাহার করে নিতে তেল আবিবকে এক ঘণ্টা সময়সীমা বেধে দয়। স্থানীয় সময় সোমবার সন্ধ্যা ৬টায় ওই সময়সীমা পার হওয়ার কয়েক মিনিটের মধ্যে ইসরাইলের লক্ষ্যবস্তুগুলোতে রকেট নিক্ষেপ করে হামাস।

ইসরাইলি সেনাবাহিনী এক বিবৃতিতে বলেছে, গাজা উপত্যকা থেকে নিক্ষিপ্ত অন্তত সাতটি রকেট বায়তুল মুকাদ্দাসের দখলীকৃত অংশে আঘাত হেনেছে। বিবৃতিতে দাবি করা হয়েছে, একটি রকেট আকাশেই ধ্বংস করে দেয়া হয়েছে এবং বাকিগুলোতে ইসরাইলের কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি।

হামাসের নিক্ষিপ্ত রকেটের কারণে অধিকৃত বায়তুল মুকাদ্দাস জুড়ে সাইরেন বেজে উঠলে ইসরাইলি পার্লামেন্টের অধিবেশন মাঝপথে মূলতবি করে সংসদ সদস্যদের নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেয়া হয়।

হামাসের রকেট বর্ষণের পর গাজা উপত্যকায় ইহুদিবাদী ইসরাইলি হামলায় নয় শিশুসহ অন্তত ২০ ফিলিস্তিনি শহীদ হয়েছেন বলে সর্বশেষ পাওয়া খবরে জানা গেছে। পার্সটুডে।

Translate »