Secand news

রাজনীতিতে ত্যাগীদের এগিয়ে যাওয়ার পথ সুগম করতে হবে – ওবায়দুল কাদের

bbc press | ২৯ নভেম্বর, ২০২০ | ৬:০৬ অপরাহ্ণ

 

সংগঠনে ত্যাগী নেতাকর্মীদের সুযোগ করে দিতে হবে এবং তাদের অগ্রাধিকার দিতে হবে বলে জানিয়েছেন সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। কোন অবস্থাতেই দুর্নীতিবাজ, দখলবাজ, মাদককারবারী, মাদকাসক্ত ও চাঁদাবাজ দুর্বৃত্তদের কমিটিতে স্হান দেওয়া যাবে না। নিজের আধিপত্য বজায় রাখতে কমিটি গঠনে মাই ম্যান নীতি গ্রহন করা যাবে না।

সরকারি বাসভবনে নিয়মিত ব্রিফিংয়ে আজ রোববার সকালে এসব কথা বলেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘(দলে) নিজস্ব বলয় তৈরি করতে মাই ম্যান দিয়ে কমিটি গঠন করা যাবে না। যেসব জেলায় আওয়ামী লীগের সম্মেলন হয়নি এবং কমিটি মেয়াদোত্তীর্ণ হয়েছে, সেসব জেলায় দ্রুত কাউন্সিল করার নির্দেশনা দিয়েছেন দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনা। জেলা সম্মেলনের আগে উপজেলা, ইউনিয়ন এবং ওয়ার্ড পর্যায়ে কাউন্সিলের মাধ্যমে কমিটি গঠন করতে হবে।’

তবে নেতাকর্মীদের কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে কাউন্সিল করার নির্দেশ দেন ওবায়দুল কাদের।

‘সরকার শাসন দীর্ঘায়িত করতে চায়’, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের এমন বক্তব্য প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘আওয়ামী লীগ জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়ে ক্ষমতায় এসেছে সুতরাং সংবিধান অনুযায়ী যথাসময়ে পরবর্তী নির্বাচন হবে। তাই শাসন দীর্ঘায়িত করার সরকারের কোনো ইচ্ছেও নেই, সুযোগও নেই।’

‘নির্বাচনের পথে না হেঁটে ক্ষমতায় যেতে নানান অগণতান্ত্রিক পথ খোঁজা’ বিএনপির পুরনো অভ্যাস বলে মন্তব্য করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘তাদের দুঃশাসন এখনো মানুষকে তাড়া করে, তাই তারা জনমানুষের আস্থা হারিয়েছে। শেখ হাসিনা সরকার উন্নয়নবান্ধব সরকার, দেশকে উন্নয়নের মহাসড়কে এগিয়ে নিচ্ছে বলেই জনগণ বারবার আওয়ামী লীগকে নির্বাচিত করছে।’

সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিএনপি মহাসচিব দেশের মানুষের স্বস্তি দেখতে পান না, দেখতে পান অপরাধীদের ভীতসন্ত্রস্ত মুখচ্ছবি। আওয়ামী লীগ কোনো খেলা বা ষড়যন্ত্রে বিশ্বাসী নয় বরং আওয়ামী লীগই বারবার ষড়যন্ত্রের শিকার। বিএনপিই পর্দার আড়ালে ষড়যন্ত্র তত্ত্বে বিশ্বাসী, তারাই ক্ষমতার জন্য অপকৌশল ও দেশবিদেশে বিভিন্ন খেলা খেলছে।’

মাগুরা জেলা বিএনপির কার্যালয়ে হামলা প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘কারা হামলা করেছে তা তদন্ত হওয়া দরকার। এ ঘটনা তাদের আভ্যন্তরীণ কোন্দলের বহিঃপ্রকাশ কি না, তা খতিয়ে দেখাও দরকার। অপরাধী কোনো দলের নয়, কিন্তু কোনো ঘটনায় অভিযুক্ত কাউকে গ্রেপ্তার করা হলে বিএনপি আবার অভিযোগ করে বলে সরকার দমন-পীড়ন চালাচ্ছে।’

গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠার আগে বিএনপিকে নিজ দলের গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার আহ্বান জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘বক্তব্য-বিবৃতি আর গুজব-অপপ্রচার চালিয় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করা যায় না।’

সেতুমন্ত্রী প্রশ্ন করেন, ‘নির্বাচনকে উদ্দেশ্যমূলকভাবে প্রশ্নবিদ্ধ করে, গোপনে সরকার পতনের অলিগলি পথ খুঁজে আর দেশ বিদেশে গোপন বৈঠক করে গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা করতে চায় বিএনপি?

Share This With :
Translate »