Secand news

পাওনা টাকা দেওয়ার কথা বলে বন্দরে গার্মেন্টস কর্মীকে ধর্ষন

bbc press | ১১ জানুয়ারি, ২০২১ | ৯:১৯ অপরাহ্ণ

বিবিসি প্রেসঃ পাওনা টাকা দেওয়ার কথা বলে মোবাইল ফোনে ডেকে নিয়ে গার্মেন্টস কর্মী (২২)কে ধর্ষনের অভিযোগ উঠেছে একই গার্মেন্টস কর্মী দেনাদার লম্পট মাসুদের বিরোদ্ধে। ১০ জানুয়ারী রোববার সন্ধ্যায় বন্দর থানার ২৪ নং ওয়ার্ডের কাইতাখালী এলাকার মমিন মিয়ার মালিকানাধীন নির্জন স্থানের এক কুঠুরিতে এ ধর্ষনের ঘটনাটি ঘটে। ওই সময় ধর্ষিতা গার্মেন্টসকর্মী আত্মচিৎকারে শব্দ পেয়ে এলাকাবাসী দ্রুত ঘটনাস্থলে এসে গার্মেন্টসকর্মীকে মুমুর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করেছে। এ ব্যাপারে ধর্ষিতা গার্মেন্টসকর্মী নিজেই বাদী হয়ে বন্দর থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চালাচ্ছে।
এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, নবীগঞ্জ বড়বাড়ী এলাকার বুলু মিয়ার ছেলে মাদক ব্যবসায়ী মাসুদ মিয়ার সাথে বন্দর কলাবাগ এলাকার ধর্ষনের শিকার ভুক্তভোগী গার্মেন্টর্সকর্মী একই সঙ্গে নারায়ণগঞ্জ শহরের রিভারভিউ মার্কেটের একটি গার্মেন্টেসে কাজ করত। সে সুবাদে উভয়ের মধ্যে পূর্ব পরিচিত ও সখ্যতা গড়ে উঠে। মাদক ব্যবসায়ী মাসুদ ওই তরুনীর কাছে কয়েকমাস পূর্বে ৫হাজার টাকা ধার নেয় এবং বেতন পেলেই পরিশোধ করবে বলে প্রতিশ্রুতি দেয়। পরে ওই তরুনী তার পাওনা টাকা চাইলে তাকে নবীগঞ্জ বড়বাড়ী এলাকায় দেখা করতে বলে। এর ধারাবাহিকতায় ১০ জানুয়ারী রোববার লম্পট মাসুদ ওই তরুনীকে ফোন করে কাইতাখালী এলাকার মমিন মিয়ার জমিতে একটি কুঠুরিতে যেতে বলে। ওই কিশোরী সরল বিশ্বাসে সেখানে গেলে এ সুযোগে লম্পট মাসুদ নির্জন স্থানে নিয়ে ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়। পরে ধর্ষিতার শিকার ওই কিশোরী রিক্সাযোগে নবীগঞ্জ ইস্পাহানী তার বোনের বাড়িতে আসলে তার বোন ও তার বোন জামাতা নিরব তাকে দ্রুত মুমুর্ষ অবস্থায় ভিক্টোরিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে।
এ ঘটনায় বন্দর থানা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) তারিকুল ইসলাম বলেন,ধর্ষিতা গার্মেন্টসকর্মী চিকিৎসা চলছে। গতকাল রাতেই হাসপাতালে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। অভিযুক্তদের বিরোদ্ধে মামলা রুজুর প্রস্তুতি চলছে।

Share This With :
Translate »